Sharing is caring!

বাংলাদেশের অর্থনীতির চালিকাশক্তি

হতে পারে জাহাজ নির্মাণ শিল্প

জাহাজ নির্মাণ বাংলাদেশের একটি সম্ভাবনাময় এবং ক্রম বিকাশমান শিল্প। আধুনিক যুগের শুরু থেকে বাংলাদেশে জাহাজ নির্মাণের একটি দীর্ঘ ইতিহাস থাকলেও স্থানীয়ভাবে তৈরি জাহাজ রফতানি করার মাধ্যমেই মূলত সাম্প্রতিক বছরগুলোতে জাহাজ নির্মাণ একটি প্রধান প্রতিশ্রুতিশীল শিল্পে পরিণত হয়েছে। বাংলাদেশে নির্মিত পণ্য এবং যাত্রী বহনকারী জাহাজ দেশের বাইরে যাচ্ছে। বাংলাদেশে নির্মিত জাহাজ ক্রয় করতে আগ্রহী হয়ে উঠেছে অনেক উন্নত দেশ। ব্রিটিশ নৌবাহিনী বাংলাদেশ থেকে যুদ্ধ জাহাজ নির্মাণ করে নিয়ে গেছে। বাংলাদেশের জাহাজ নির্মাণ শিল্প ইতোমধ্যে অনেক দূর এগিয়েছে। এভাবে এগিয়ে গেলে এদেশের অর্থনীতিতে এক বিপ্লব ঘটবে বলে আশা করা যায়।

এ সম্ভাবনাকে কাজে লাগিয়ে গত ১০ বছরে জাহাজ নির্মাণ শিল্পে আয় হয়েছে প্রায় দেড় হাজার কোটি টাকা (১৭০ মিলিয়ন ডলার)। এমনকি গত পাঁচ বছর বিশ্বব্যাপী এ শিল্পে মন্দাভাব না থাকলে রফতানি আয় আরও কয়েকগুণ বাড়তো। তবে দেশের মোট রফতানি আয়ের ৮৯ শতাংশ এককভাবে অর্জন করেছে দেশের ওয়েস্টার্ন মেরিন শিপইয়ার্ড কোম্পানি।

এদিকে রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর তথ্য অনুযায়ী; ২০১৭-১৮ অর্থবছরে বাংলাদেশ প্রথম পাঁচ মাসে তথা জুলাই থেকে নভেম্বরে জাহাজ নির্মাণ শিল্প থেকে তিন কোটি চার লাখ ৫০ হাজার (৩০ দশমিক ৪৫ মিলিয়ন) ডলার আয় হয়েছে, যা একই সময়ে গত অর্থবছরে ছিল ৫৪ লাখ ৩০ হাজার (৫ দশমিক ৪৩ মিলিয়ন) ডলার অর্থাৎ এ খাতে ২০১৬-১৭ অর্থবছরের তুলনায় প্রায় ৪৬১ শতাংশ প্রবৃদ্ধি হয়েছে।

বর্তমানে বাংলাদেশের জাহাজ নির্মাণকারী প্রতিষ্ঠানগুলো আন্তর্জাতিকভাবে পৃথিবীর বিভিন্ন দেশ থেকে জাহাজ নির্মাণের ব্যাপারে চুক্তিবদ্ধ হচ্ছে। এ পর্যন্ত ২৫০ মিলিয়ন ডলারের চুক্তি হয়েছে। আন্তর্জাতিক পর্যায়ে ক্ষুদ্র জাহাজ নির্মাণের জন্য ৪৫০ বিলিয়ন ডলারের চাহিদা রয়েছে। দেশের জাহাজ নির্মাণ শিল্প যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে তাতে দেশের রফতানি পণ্য তালিকায় গার্মেন্টস শিল্পের পর জাহাজ নির্মাণ শিল্পের স্থান হবে। বাংলাদেশে গার্মেন্টস শিল্প গত ২৫ বছর ২৫ বিলিয়ন ডলার আয় করেছে। আর জাহাজ নির্মাণ শিল্পে গত ১৩ বছরে তার সমপর্যায়ে আয় করেছে। জাহাজ নির্মাণকারী দেশ হিসাবে বাংলাদেশের নাম উঠে এসেছে আন্তর্জাতিক পর্যায়ে। সাম্প্রতিক সময়ে এই শিল্পের জন্য দক্ষ জনশক্তি গড়ে তোলার লক্ষ্যে পরিকল্পনা করেছে সরকার। এ বছরে কয়েক হাজার বেকার তরুণ যুবককে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে বলে জানা গেছে। জাহাজ নির্মাণ শিল্প মালিক সমিতি এই কর্মসূচি বাস্তবায়ন করবে। এই কর্মসূচির মাধ্যমে জাহাজ নির্মাণ শিল্পে প্রচুর লোকের কর্মসংস্থান হবে এবং এই শিল্পের মানও আরও বেড়ে যাবে। আমাদের দেশের জাহাজ নির্মাণ শিল্প যেভাবে এগিয়ে যাচ্ছে তাতে আমাদের জাতীয় অর্থনীতিতে নতুন দিগন্তের সূচনা হবে।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *