Sharing is caring!

দল পরিবর্তন করলেও ছাড় পাবে না

জামায়াত নেতারা

নিউজ ডেস্ক: যুদ্ধাপরাধ এবং এর দায় থেকে মুক্তি পেতে জামায়াতে ইসলামী নাম পরিবর্তন করে অন্য নামে রাজনীতিতে আসতে সচেষ্ট হলেও মুক্তিযুদ্ধ চলাকালীন সময়ে নেতিবাচক ভূমিকার দায় থেকে সহসাই মুক্তি মিলছে না তাদের। যে নামেই তারা রাজনীতিতে ফিরে আসুক না কেন, অপরাধীদের আইনের আওতায় আনা হবে বলে স্পষ্ট জানিয়ে দিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।সচিবালয়ে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে আইনমন্ত্রী আনিসুল হক বলেন, জামায়াতে ইসলামী যে রূপেই আসুক না কেন, তৎকালীন জামায়াতে ইসলামীর যেসব নেতারা অপরাধের সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলো আদালতে তাদের জবাবদিহি করতেই হবে।

জামায়াতে ইসলামীর সকল নেতাদের সম্পৃক্ততা খতিয়ে দেখা হবে জানিয়ে আইনমন্ত্রী আরও বলেন, অভিযোগ নেই এমন নেতারাও যদি নতুন দল গঠনের চেষ্টা করে, সেটিও খতিয়ে দেখা হবে।

এদিকে এমন প্রেক্ষাপটে যুদ্ধাপরাধীদের দল জামায়াতে ইসলামীর নেতাকর্মীরা এ নিয়ে শঙ্কায় পড়েছেন। তারা সন্দিহান প্রকাশ করে বলছেন, যুদ্ধাপরাধীদের দল বলে কী এই আইনের আওতায় তারাও জড়িয়ে পড়তে পারে?

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক জামায়াতে ইসলামীর একজন আমির সন্ত্রস্ত কণ্ঠে বলেন, আমি জামায়াতে ইসলামীর গঠনতন্ত্রে বিশ্বাসী। ধর্মীয় মূল্যবোধ ও বিশ্বাস থেকেই জামায়াতে ইসলামী করি। কিন্তু আমি যুদ্ধাপরাধকে সমর্থন করি না। বরং আমি মুক্তিযুদ্ধে বিশ্বাসী। কিন্তু যদি কেবল জামায়াতের রাজনীতি করার জন্য শাস্তির আওতায় নিয়ে আসা হয় সেটি নিয়ে দলের অনেকেই সন্ত্রস্ত। আমরা বিষয়টি নিয়ে সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করছি। সরকার যেন বিষয়টি গুরুত্ব সহকারে বিবেচনা করেন।

আপনার মতামত লিখুন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *